নতুন দিগন্তের পথে দেশ

নতুন অর্থনীতির দ্বার খুলতে বিনিয়োগে আগ্রহী দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীরা। অন্যদিকে কর্মসংস্থানের আশায় প্রহর গুনছে লাখো তরুণ। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়েই পুরোদমে এগিয়ে যাচ্ছে দেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোর কার্যক্রম।

বেসরকারি, সরকারি-বেসরকারি অংশীদারি (পিপিপি) ও বিদেশিÑ এই চার ধরনের অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন নিয়ে কাজ শুরু করেছে বেজা। এরই মধ্যে ৭৬টি অর্থনৈতিক অঞ্চলের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে ৬৩টিই সরকারি আর ১৩টি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোর জন্য প্রায় ৭৬ হাজার একর জমি অধিগ্রহণ ও মালিকানাধীন করার পরিকল্পনা রয়েছে। এর মধ্যে সরকারি পর্যায়ে প্রায় ৭৩ দশমিক ৫ হাজার একর জমি অধিগ্রহণের পরিকল্পনা আছে। এরই মধ্যে ৩৪ হাজার একর জমির মালিকানা নিয়ে নিয়েছে বেজা। আর বাকি ৩৯ দশমিক ৫ হাজার একর জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়াধীন। অন্যদিকে বেসরকারি ১০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে প্রায় আড়াই হাজার একর জমির ওপর।